কক্সবাজারে ‘সানিবীচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল’ গেইটে অবশেষে প্রশাসনের তালা

এইচ.এম নজরুল ইসলাম: জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার প্রায় ৫০ শতক জমি দখলে নিয়ে এক যুগের বেশি সময় ধরে প্রতিষ্ঠানিক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে ‘সানিবীচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে দুইটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রায় ১০ কোটি টাকা মূল্যের জমি দখলে রেখেছে। জামায়াত সমর্থিত একটি গ্রুপ এই স্কুলটি পরিচালনা করছে বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যে কক্সবাজার সদর ভূমি কমিশনার জমিটি ছেড়ে দিতে স্কুল কর্তৃপক্ষকে বেশ কয়েকবার অবগত করেছেন। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. নাজিম উদ্দীনের নেত্বত্বে স্কুল গেইটে তালা ঝুলিয়ে দেয় প্রশাসন। এছাড়া স্কুল কর্তৃপক্ষ কক্সবাজার পৌরসভার প্রায় সাড়ে ৫ গন্ডা জমি দখলে নিয়েছে বলে পৌরসভার সূত্রে জানা গেছে। ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার শহরের বালিকা মাদ্রাসা রোডের পাশে প্রায় ৫০ শতক সরকারি জমি দখলে নিয়েছে ‘সানিবীচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল’ কর্তৃপক্ষ। তারা দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে দখলে আছে। এবিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) নাজিম উদ্দীন বলেন, প্রায় ৫০ শতক জমি ‘সানিবীচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল’ কর্তৃপক্ষ দখলে নিয়ে প্রতিষ্ঠানের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের দখল করা জমি গুলো হলো ‘বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন এ্যাসোশিয়েশন’র নামে বরাদ্দ রয়েছে। বেশ কয়েকবার স্কুল কর্তৃপক্ষকে সরকারি দখল করা জমি ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে। এমনকি তাদের লিখিতও বলা হয়। কিন্তু তারা প্রশাসনের কথা আমলে নেয়নি। তাই বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রতিষ্ঠানের গেইটে তালা লাগিয়ে দেয়া হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এছাড়া দ্রুত সময়ের মধ্যে উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে সরকারি জমি দখল মুক্ত করা হবে। অন্যদিকে কক্সবাজার পৌরসভার সূত্রে জানা গেছে- ২০১৬ সালের ২৮ ডিসেম্বর আনন্দ মাল্টিমিডিয়া স্কুল, বর্তমানে সানিবীচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও প্রধান শিক্ষককে পৌরসভার জমি দখলে রাখার বিষয়ে প্রয়োজনীয় দলিলসহ চলতি বছরের ২ জানুয়ারি পৌরসভায় উপস্থিত থাকার মর্মে চিঠি প্রেরণ করেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ ও পৌরসভার ভূমি উদ্ধার কমিটির আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম। এবিষয়ে রফিকুল ইসলাম বলেন, সানিবীচ স্কুল কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় দলিলসহ উপস্থিত থাকার জন্য বলা হলেও তারা এখনো কোনো দলিল নিয়ে উপস্থিত থাকতে পারেনি। বরং ২ জানুয়ারি স্কুল কর্তৃপক্ষ পাল্টা চিঠি ইস্যু করেছে তাদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এলাকায় উপস্থিত না থাকায় তারা বৈঠকে উপস্থিত থাকতে অক্ষম। তিনি আরো বলেন- স্কুল কর্তৃপক্ষ পৌরসভার প্রায় সাড়ে ৫ গন্ডা জমি অবৈধভাবে দখলে রেখেছে। এই জমির মূল্যে প্রায় আড়াই কোটি টাকা। এছাড়া প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়ে দ্রুত সময়ে এই জমি উদ্ধার করা হবে। এবিষয়ে জানতে চাইলে সানিবীচ স্কুলের পরিচালক ছৈয়দ উল্লাহ আযাদ বলেন- বর্তমানে স্কুলে জমির পরিমাণ ৮১ শতক। এরমধ্যে ৩৪ শতক জমি কক্সবাজার পৌরসভা থেকে লীজ নেয়া হয়েছে। বাকি জমি গুলো জেলা প্রশাসনের। জেলা প্রশাসনের এই জমি গুলোর বরাদ্দ নেয়া জন্য আবেদনও করা হয়েছে। তিনি বলেন- ডাক্তার ও সচিবসহ স্কুল পরিচালনায় প্রায় ২০ জন মতো রয়েছে। ফরিদুল আলম নামে আরেক পরিচালক বলেন- জমির কাগজ পত্র নিয়ে দুই দিন আগে জেলা প্রশাসনের উচ্চ কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করেছি। কাগজপত্র গুলো সেখানে দেখানো হয়েছে। তবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গেইটে তালা লাগানোর বিষয়ে তিনি এড়িয়ে যান। এছাড়া পৌরসভার কোনো জমি দখল করেনি বলেও তিনি জানান।
Share on Google Plus

About Iqbal Bahar

    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment