ভারতের বিরুদ্ধে সেমিফাইনাল : মোস্তাফিজকে ঘিরে বিশেষ পরিকল্পনা

দুবছর আগে তার পেস আক্রমণের সামনে খড়কুটোর মতো উড়ে গিয়েছিল ভারতীয় বিখ্যাত ব্যাটিং লাইন আপ। এবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি করতে চান বাংলাদেশের বোলিং আক্রমণের অন্যতম সেরা অস্ত্র মোস্তাফিজুর রহমান।
২০১৫ সালে ভারতের বাংলাদেশ সফরে, পরপর দুটি একদিনের ম্যাচে পাঁচ উইকেট নিয়ে খ্যাতির শিরোনামে চলে এসেছিলেন বাঁ-হাতি মোস্তাফিজুর।
দুদিন পরই ইংল্যান্ডের বার্মিংহামে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে মুখোমুখি হতে চলেছে দুই দেশ। সেদিনও দুবছর আগের সেই বিধ্বংসী ফর্মের পুনরাবৃত্তি চান মোস্তাফিজুর।
চলতি টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত কাঙ্ক্ষিত ফর্মের ধারেকাছে পৌঁছতে পারেননি তিনি। তিন ম্যাচে পেয়েছেন মাত্র একটি উইকেট। যা নিয়ে মহা-গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে বেশ চিন্তিত এই বোলার।
মুস্তাফিজুরের দাবি, ইংল্যান্ডের আবহাওয়ায় তাঁর সেরা অস্ত্র অফ-কাটার ঠিকমতো কার্যকর হচ্ছে না, যেমনটা উপ-মহাদেশীয় পিচে হয়। তিনি বলেন, এখানে ঠিকমতো হচ্ছে না। তবে, আমি চেষ্টা করছি।
মোস্তাফিজুরের এখন একটাই প্রার্থনা। ভারত ম্যাচের দিন যদি তার অফ-কাটার কাজ দেয়। এর জন্য দুবছর আগের স্মৃতিকে আঁকড়ে তিনি নিজেকে উদ্বুদ্ধ করার চেষ্টা করছেন।
তিনি বলেন, ভারত ম্যাচের আগে সকলেই উদ্বুদ্ধ। আমি আশা করি, কিছু ভালো একটা হবে। আমি আমার সেরাটা উজাড় করে দেব সেদিন। আমরা সকলেই নিজেদের ক্ষমতায় বিশ্বাস করি।
এদিকে, সেমিফাইনালে সম্ভবত চার ফাস্ট বোলার খেলাতে পারে বাংলাদেশ। জানা গেছে, ভারতের গভীর ও অভিজ্ঞ ব্যাটিং লাইন-আপের মোকাবিলা করতে— রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান ও মাশরাফি মর্তুজাকে খেলানোর চিন্তাভাবনা করছে।
এদের মধ্যে প্রথম তিনজন ঘণ্টায় ১৪৫ কিলোমিটার বেগে বল করতে পারে। বাংলাদেশের পরিকল্পনা— এজবাস্টনে পেস বা গতি দিয়ে ভারতের ব্যাটিংয়ে ধস নামানো।
গত ২ দিন ধরে এজবাস্টনে বৃষ্টি হচ্ছে। ফলে, আবহাওয়া ভীষণই স্যাঁতস্যাঁতে। পিচেও ভালো আদ্রতা রয়েছে। বৃহস্পতিবার এই পরিবেশের ফায়দা তোলার আশা করছে বাংলাদেশ।
বাংলাদেশের বোলিং কোচ তথা ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি বোলার কোর্টনি ওয়ালশ। মঙ্গলবার তিনি মোস্তাফিজুরদের নিয়ে এক ঘণ্টার বেশি সময় ব্যয় করেছেন নেটে।
Share on Google Plus

About Unknown

    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment