আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদে আসন হারালেন স্টিভ ব্যানন



যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প তার জ্যেষ্ঠ কৌশলবিদ স্টিভ ব্যাননকে দেশের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ (এনএসসি) থেকে সরিয়ে দিয়েছেন। জানুয়ারিতে এনএসসি’র সদস্য হিসেবে তাকে নিয়োগ দেয়া হলে, দেশটির বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানদের মধ্যে উদ্বেগ ছড়ায় যে, এই মহাগুরুত্বপূর্ণ পরিষদকেও রাজনীতিকরণ করা হচ্ছে। তবে হোয়াইট হাউসের একজন সহযোগী বলেছেন, এনএসসি থেকে ব্যাননকে অপসারণের মানে এই নয় যে, তাকে পদাবনমন করা হয়েছে। ওই কর্মকর্তা বলেছেন, এনএসসিতে ব্যাননের স্থান ছিল অস্থায়ী। তাকে রাখা হয়েছিল তৎকালীন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনের ওপর চোখ রাখতে। ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া সংক্রান্ত এক কেলেঙ্কারির জেরে ফ্লিনকে বরখাস্ত করা হয়। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
খবরে বলা হয়, এনএসসি হলো মার্কিন প্রেসিডেন্টকে জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্র বিষয়ে পরামর্শদাতা শীর্ষ প্রতিষ্ঠান। তবে বুধবার প্রেসিডেন্ট নির্বাহী আদেশে ব্যাননকে অপসারণ করলেও হোয়াইট হাউস তা ঘোষণা দিয়ে জানায়নি। বরং, একটি পৃথক অনুসন্ধানে ঘটনাটি বেরিয়ে আসে। প্রেসিডেন্টের আদেশে এনএসসাইট আবারো অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে ন্যাশনাল ইন্টিলিজেন্স, সিআইএ-এর পরিচালক এবং জয়েন্ট চিফস অব স্টাফসের চেয়ারম্যানকে। ২৭শে জানুয়ারি যখন ব্যাননকে এনএসসিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়, তখন সামরিক বাহিনীর প্রধানরা সহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রধানদের এই পরিষদ থেকে বাদ রাখা হয়। ন্যাশনাল ইন্টিলিজেন্স ও সামরিক বাহিনীর প্রধানদের বলা হয় যে, এনএসসিতে যদি তাদের এখতিয়ারে রয়েছে এমন ইস্যুতে আলোচনা হয় তখনই কেবল তারা বৈঠকে অংশ নেবে। এ নিয়ে ওয়াশিংটনের পররাষ্ট্রনীতি ও নিরাপত্তা সংক্রান্ত সংস্থাগুলোয় ব্যাপকহারে সমালোচনার জন্ম নেয়।
সমালোচকদের মতে, কট্টর ডানপন্থি সংবাদ মাধ্যম ব্রেইটবার্টের সাবেক সম্পাদক ব্যানন হলেন শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদী।
Share on Google Plus

About Nejam Kutubi

    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment