তিস্তা নিয়ে আলোচনায় রাজি মমতা by পরিতোষ পাল

অবশেষে তিস্তা নিয়ে আলোচনায় রাজি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহষ্পতিবার এবিপি আনন্দে সম্প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে মমতা নিজেই এ কথা বলেছেন। তবে তিনি বাংলাদেশকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, রাজ্যকে বাঁচিয়ে বাংলাদেশকে যতটা সাহায্য করার করব।  তিনি বলেছেন, আমার সঙ্গে হাসিনার সম্পর্ক খুব ভাল। তিস্তার সঙ্গে রাজ্যের স্বার্থ জড়িত। রাজ্যকে প্রায়োরিটি দিতে হবে। তিনি আরও বলেছেন, শোনা যাচ্ছে ২৫ মে তিস্তা নিয়ে চুক্তি সই হবে। কিন্তু  আমি কিছু জানি না বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রীর। এদিন মমতা বেসরকারি হাসপাতাল থেকে নারদে সিবিআই, রাষ্ট্রপতি নির্বাচন থেকে ধর্মীয় মেরুকরণ,শিশুপাচার,সব ব্যাপারেরই মতামত জানিয়েচেন্ । তিনি বলেছেন, টিম তৈরি আছে, আমার  অবর্তমানে পার্টি শেষ হয়ে যাবে না। তবে তিনি জানিযেচেন, আমার দলেও আমাকে সরানোর চেষ্টা হয়েছে। দল ভাঙার চেষ্টা হয়েছে। ৯৯.৯% ভাল। কাউকে কাউকে মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার টোপ দেওয়া হয়েছিল। তারা রাজি হয়নি। তবে প্রধানমন্ত্রী মোদী সম্পর্কে মমতা কোনও মন্তব্য করতে এদিন অস্বীকার করেছেন। সাক্ষাৎকারে মমতা াভিযোগ করেচেন যে, তাঁকে মেরে ফেলার চক্রান্ত হয়েছিল্ । মুখ্যমন্ত্রী বলেচেন, জেনুইন কেসে কেন্দ্রকে সাপোর্ট করি। জিএসটিতে দিয়েছি। মানুষের ভাল হলে সাপোর্ট করি। সিবিআই-জেলে পাঠানোর ভয় পাই না। কেন্দ্রের সঙ্গে সহযোগিতার কথা জানিয়ে মমতা বলেচেন,  আমরা কি পেয়েছি? সরাসরি অফিসারদের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে? যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর বিরুদ্ধে গিয়ে। সিআরপিএফ পাঠিয়ে দিচ্ছে। ডিএমদের চিঠি দিয়ে বলছে, ভিডিও কনফারেন্স হবে। নারদ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন,  নারদের ফুটেজ নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। এটা নিয়ে কথা বলব না। বিচারধীন বিষয়। রাজনৈতিক চক্রান্ত। ২০১৪-এ করানো হয়েছিল। প্রতিশোধ নিতে ওরা প্ল্যান করে।  রাষ্ট্রপতি নির্বাচন প্রসঙ্গে মমতা বলেছেন. প্রণব, আডবাণী,. সুষমা, সুমিত্রা মহাজন হতে পারে। এঁদের মধ্যে কেউ হলে খুশি হব। না দেখে বলা ঠিক হবে না। সময় এলে বলব। উত্তরপ্রদেশে বিজেপির বিজয় নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, এত আহ্লাদিত, উৎ্সাহিত হওয়ার কারণ নেই। আসলে ওরা অনেক ভোটে হেরেছে। উত্তরপ্রদেশে বিশাল জয় নয়, ওটা একতরফা জয়। বিরোধীরা লড়াই করতে পারেনি। ১৮৩ কোটি টাকা সিজ করেছে কমিশন। সব নতুন নোটে। টাকা এল কোথা থেকে? ২০১২ সালে ৫১ কোটি। বিরোধীদের উচিত ছিল অভিযোগ করা। অঙ্কটা কিন্তু আমি মেলাতে পারছি না। নোট বাতিলের নেতিবাচক প্রভাব আছে। আগামী দিন অন্য কথা বলছে। মায়াবতী ইভিএম নিয়ে বলেছে। এখন ওরা কোর্টে যেতে পারে। মনে করলে, চ্যালেঞ্জ করতে পারে।
Share on Google Plus

About বাংলা খবর

    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment