কেজরিওয়ালের দখলে যাচ্ছে পাঞ্জাব?

ভারতের পাঞ্জাবে শনিবার বিধানসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। পাঞ্জাবের প্রায় ১ কোটি ৪ লাখ মানুষ ১১৭টি আসনের জন্য ভোট দেন। প্রায় ১ হাজার ১০০ জন প্রার্থী নির্বাচনে লড়েছেন। কঠিন পরীক্ষার এ নির্বাচন হবে ক্ষমতাসীন বিজেপি-সংযুক্ত আকালি দলের জোট, কংগ্রেস এবং আম আদমি পার্টির (এএপি) ত্রিমুখী লড়াই। নোট বাতিলের জেরে কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি বিজেপি। অন্যদিকে, কংগ্রেস চায় আগের আসনগুলো টিকিয়ে রেখে প্রতিযোগিতাকে আরও জোরালো করতে। তবে পাঞ্জাবের এ নির্বাচন নিয়ে এক জরিপ বলছে, পাঞ্জাব বিধানসভায় বসতে যাচ্ছে আম আদমি পার্টি। ড. প্রান্নয় লাল রায়, দোরাব সোপারিওয়ালা এবং শিখর গুপ্তা পাঞ্জাবের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে এ জরিপ পরিচালনা করেছেন। পাঞ্জাবের বাসিন্দাদের মতামত, নির্বাচনী রেকর্ড এবং নিজেদের বিশ্লেষণী জ্ঞানের সমন্বয়ে জরিপের ফলাফলে পৌঁছেছেন ভারতের এ তিন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। তারা বলেন, দিল্লির পর এবার পাঞ্জাব দখলের পথে এএপি।
পাঞ্জাবে ৫৫-৬০ শতাংশ জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে আম আদমির। সরেজমিন জনগণের মতামতের ব্যাপারে শেখর গুপ্তা বলেন, ভোটাররা পরিবর্তনের জন্য ভোট দেবেন বলে স্বতঃস্ফূর্তভাবে জানিয়েছেন। জরিপের ফলাফলে ভোটাররা কেন আম আদমি পার্টির দিকে ঝুঁকবে তার কয়েকটি কারণ তুলে ধরা হয়েছে। সেগুলো হল- পরিবর্তন চায় ভোটাররা, নোট বাতিলের ফলে আকাল, যুবকদের কর্মসংস্থানের ঘাটতি পূরণে ব্যর্থতা এবং তাদের মাদকে আসক্ততা কমাতে পারছে না ক্ষমতাসীন দল ইত্যাদি। এএপি কতটি আসন পেতে পারে তাও বলা হয়েছে ওই জরিপে। ২০১৭ সালের বিধানসভা নির্বাচনে ৬৬ আসনে জয় পাবে এএপি। ২০১২ সালের নির্বাচনের সময় অস্তিত্ব না থাকা এ দলটি ২০১৪ সালের নির্বাচনে ৩৩টি আসনে জয় পেয়েছিল। জরিপে আরও বলা হয়, ক্ষমতাসীন আকালি জোট ২০১৪ সালের নির্বাচনে পাওয়া ৪৫ আসন থেকে কমে ২২ আসন পাবে। তবে গত নির্বাচনে ৩৭ আসন পাওয়া কংগ্রেস ২৮টি আসন পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকবে। এনডিটিভি
Share on Google Plus

About Sadia Afroza

    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment