আত্রাইয়ে আলুর বাম্পার ফলন

নওগাঁর আত্রাইয়ে আলুর বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে এখন হাসির ঝিলিক। বিগত বছরের তুলনায় বাজার দাম ও হেক্টর প্রতি উৎপাদন ভালো হওয়ায় কৃষক আনন্দিত। এবার ভালো মানের বীজ ও আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। তথ্যানুসন্ধ্যানে জানা যায়, চলতি মওসুমে উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ ২ হাজার ৭০০ হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও এ বছর উপজেলায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে কৃষক আলু চাষ করেছে এবং আলুর বাম্পার ফলনও হয়েছে। শুরুতেই আলুর ক্ষেতে নেদা পোকার আনাগোনা দেখা দিলেও মাঠ পর্যায়ে আলু চাষিদেরকে কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে যথাযথ পরামর্শ ও প্রত্যক্ষ কারিগরী সহযোগিতার কারণে আলু ক্ষেত অনেকটা রোগ বালাই মুক্ত হওয়ায় বাম্পার ফলন হয়েছে বলে মনে করছেন কৃষকরা। উপজেলার শহাগোলা,ভোঁপাড়া, মনিয়ারী ও আহসানগঞ্জ ইউনিয়নে সব চেয়ে বেশি আলুর আবাদ হয়েছে বলে কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে। সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, লক্ষমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে আলু চাষ হলেও শুরুতেই রোগ ও পোকার আক্রমনে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছিলেন আত্রাইয়ের আলু চাষিরা।
কিন্তু সেই বিপর্যয় কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন তারা। আলুর বাম্পার ফলন হওয়ায় এখন চাষিদের মাঝে বইছে আনন্দের জোয়ার। উপজেলার মাঠে মাঠে চলছে আলু উত্তোলন ও বস্তা ভর্তির কাজ। নারী ও পুরুষেরা আলু উত্তোলনের কাজ নিয়ে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। প্যাকেটজাত শেষে এসব আলু আবার চলে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলায় জেলায়। হেক্টর প্রতি উৎপাদন বেড়ে যাওয়ায় ও বাজার মূল্য বেশি হওয়ার ফলে সন্তষ্ট কৃষক ও পাইকরা। উপজেলার রসুলপুর গ্রামের রফিকুল ইসলাম জানান, আমি এ বছর ৫ বিঘা জমিতে আলু চাষ করেছি। হিমাগারে কিছু বীজ রেখেছিলাম আর বাকিটা কিনে জমিতে বপণ করেছি। আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে ও দাম ভাল হওয়ায় বন্যার ক্ষতি পুষিয়ে পুরোদমে ইরি-বোরো চাষ করতে পারবো। ভোঁপাড়া গ্রামের মনিরুল ইসলাম জানান, আমি চলতি মওসুমে প্রায় সাড়ে ৮ বিঘা জমিতে লাল পাকরী জাতের আলু আবাদ করেছি। কোন প্রকার দূযোর্গ ও রোগবালাই না থাকায় এ বছর আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসার কে এম কাউছার জানান, এবার আবহাওয়া অনুকুলে থাকা, ভালো বীজ, কৃষকদের নিয়মিত পরিচর্ষা ও কৃষি অফিসের কর্মকর্তাদের পরামর্শে আলুর ভালো ফলন অর্জিত হয়েছে। যা আগামীতে আরো বেশি কৃষককে আলু চাষে উৎসাহিত করবে। শুধু তাই নয় আলু চাষের জমিগুলো উর্ব্বরতা বেশি থাকায় কৃষকরা ইরি-বোরো চাষেও ্এর সুফল পাবে।
Share on Google Plus

About Sadia Afroza

    Blogger Comment
    Facebook Comment

0 comments:

Post a Comment